রাজ্য

ছেলের জেদের কাছে হার মেনে স্ত্রী পুত্রের সাথে দেখা করতে শৈল শহরে সইফ আলী খান। মা করিনাকে কাছে পেয়ে খুশি তৈমুর

শিলিগুড়ি, ১৯ মেঃ বেগমের সাথে দেখা করতে শৈলশহরে হাজির নবাব। বেগম আর কেও নন, তিনি করিনা কাপুর। স্ত্রী পুত্রের সাথে দেখা করতে বৃহস্পতিবার দুপুরে দার্জিলিং পৌছলেন নবাব সইফ আলী খান। এদিন দুপুরে বড় ছেলে তৈমুরকে সঙ্গে নিয়ে মুম্বাই থেকে বিশেষ বিমানে বাগডোগরা বিমান বন্দরে নামেন সইফ। বিমানবন্দর থেকে কড়া নিরাপত্তায় সড়ক পথে দার্জিলিং পৌছান নবাবপুত্র। এদিন সইফ আলী খানকে দেখতে বিমান বন্দরে উপচে পড়ে ভিড় উৎসুক জনতার।

শ্যুটিং এর জন্য নয়, নিজের ব্যস্ত শিডিউলের মাঝেও স্ত্রী পুত্রের সাথে দেখা করতে শৈল শহরে এলেন নবাব পুত্র সইফ আলী খান। গত ১০ মে ওয়েব সিরিজের শুটিংয়ে পাহাড়ে এসেছেন করিনা কাপুর। কাহানি-টু এর পরিচালক সুজয় ঘোষের ডিভোসন নামে একটি ওয়েব সিরিজে পাহাড়ে ১৮ দিন ধরে শ্যুটিং করবেন করিনা। করিনার সাথে এসেছে তার দেড় বছরের পুত্র সন্তান জাহাঙ্গীর আলী খান। এদিন মুম্বাই থেকে বিশেষ বিমানে বড় ছেলে তৈমুরকে সাথে নিয়ে বাগডোগরা বিমান বন্দরে নামেন সইফ আলী খান। সি আই এস এফের কড়া নিরাপত্তার বেষ্টনিতে বিমান বন্দর থেকে বেড়িয়ে সড়ক পথে সোজা চলে যান শৈল শহর দার্জিলিং-এ। শুটিং এর কাজে করিনা কাপুর পাহাড়ে আসার পর থেকেই মায়ের কাছে আসার জেদ ধরেছে তাঁর বড় ছেলে তৈমুর। ছেলের জেদের কাছে হার মেনে নিজের ব্যস্ত শিডিউল ছেড়ে পাহাড়ে করিনা কাপুরের কাছে আসতে বাধ্য হয়েছেন সইফ আলী খান। ডিভোশন ছবির লাইন প্রোডিউসার চৈতালি মুখোপাধ্যায় জানান, সইফ আলী খান সোজা চলে যাবেন দার্জিলিং-এ করিনা কাপুরের কাছে। পাহাড়েই কয়েকদিন স্বপরিবারে সময় কাটাবেন নবাব বেগম ও তাদের দুই পুত্র সন্তান তৈমুর ও জাহাঙ্গীর। পাশাপাশি সমানতালে শুটিং করবেন করিনা। পাহাড়ে শুটিং-এর পর্ব শেষ করে সইফ ঘরোনীর মুম্বাই ফিরে যাওয়ার কথা রয়েছে ২৮ মে। তবে তাঁর অনেক আগেই মুম্বাই ফিরে যাবেন সইফ আলী খান ও তৈমুর।