উত্তরবঙ্গ

ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নাম তুলল প্রত্যন্ত গ্রামের আড়াই বছরের শিশুকন্যা। উচ্ছ্বসিত গোটা গ্রাম

কোচবিহার, ১৮ মেঃ বয়স মাত্র দু বছর সাত মাস, ভাল করে এখনও কথাও ফোটেনি। আর এই বয়সেই নাম তুলে নিলো ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে৷ আর এই বয়সেই ১০০ টি দেশের রাজধানীর নাম, দেশের ২৯ টি রাজ্যের রাজধানীর নাম, ২৫ টি ভারতীয় জাতীয় চিহ্নের নাম, ইংরেজি ১২ মাসের নাম ইংরেজি ৭ দিনের নাম, ইংরেজিতে ৬টি ঋতুর নাম অনর্গল বলে দিতে পারে দীপশিখা। আর তার সুবাদে সম্প্রতি তার নাম উঠেছে ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে৷ সেই কারণে শংসাপত্র এবং পদক দিয়ে দীপশিখাকে স্বীকৃতি দিয়েছে ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ৷ যা পেয়ে খুশি পরিবারের সকলেই৷ এত অল্প বয়সে শিশু দীপশিখার প্রতিভায় বিস্মিত গোটা গ্রাম৷

জানাগেছে, তুফানগঞ্জ ১ নং ব্লকের ঘোগার কুঠির বাসিন্দা দিলীপ বর্মনের মেয়ে দীপশিখা। কর্মসূত্রে তিনি স্ত্রী ও মেয়েকে নিয়ে থাকেন হায়দ্রাবাদে। দুবছর বয়স থেকেই দীপশিখাকে তাঁর স্ত্রী শেখাতে শুরু করেন নানান জিনিশ। আর সে কারণে এত অল্প বসেই শিশুকন্যাটি শিখে ফেলে ১০০ টি দেশের রাজধানীর নাম, দেশের ২৯ টি রাজ্যের রাজধানীর নাম, ২৫ টি ভারতীয় জাতীয় চিহ্নের নাম, ইংরেজি ১২ মাসের নাম ইংরেজি ৭ দিনের নাম, ইংরেজিতে ৬টি ঋতুর নাম সহ আরও বহু জিনিশ। শিশু দীপশিখার এমন প্রতিভা জানাজানি হতেই প্রতিবেশীরা বাবা দিলীপ বর্মণকে পরামর্শ দেন ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসের জন্য আবেদন করতে। আর সেই মতো ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নাম নথিভূক্তের জন্য আবেদন করেন দিলীপ বাবু। আর এই আবেদনে সারা দিয়ে দীপশিখার প্রতিভাকে স্বীকৃতি দেয় ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডস কর্তৃপক্ষ। একটি প্রত্যন্ত গ্রামের শিশুর এই সাফল্য সত্যিই নজরকাড়া বলতেই হয়৷ এই নজরকাড়া সাফল্যে স্বাভাবিকভাবেই উচ্ছ্বসিত গোটা গ্রাম৷ যদিও দীপশিখার মা বাবা পুরো কৃতিত্ব দিয়েছেন তাদের মেয়েকেই।