উত্তরবঙ্গ

অবৈধ সম্পর্কের জেরে খুন। স্ত্রী এবং এক যুবককে আটক করলো পুলিশ।

দক্ষিণ দিনাজপুর, ২৫ সেপ্টেম্বরঃ অবৈধ সম্পর্কের জেরে খুন এক ব্যক্তি। দক্ষিণ দিনাজপুরের বংশীহারী ব্লকের এলাহাবাদ গ্রাম পঞ্চায়েতের সাধুহাড় এলাকার ঘটনা। এলাকাবাসীদের অভিযোগ, ত্রিকোণ প্রেমের জেরে ওই ব্যক্তির স্ত্রী, তার প্রেমিককে সঙ্গে নিয়ে তাকে খুন করেছে। মৃতের নাম অনুপ সরকার বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসীরা।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, ঝাড়খন্ডের বাসিন্দা ইমেল হাজরার সঙ্গে বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল অনুপ সরকারের স্ত্রী কাঞ্চনা সরকারের। তন্ত্র মন্ত্রের সূত্র ধরেই ইমেল এবং কাঞ্চনার মধ্যে পরিচয়। কাঞ্চনাকে একটি চারচাকার গাড়িও কিনে দেয় ইমেল। কাঞ্চনা এবং ইমেলের অবৈধ সম্পর্কে এলাকার বাসিন্দা অপু প্রামাণিক এবং স্বপন প্রামাণিক সাহায্য করতো বলেও অভিযোগ। এই নিয়ে এর আগেও বিবাদ বাঁধে। অভিযোগ, অবৈধ সম্পর্কে বাধা দিতে গেলে, সেই সময় অনুপ সরকারকে মারধর করে তাঁর নামেই থানায় বধূ নির্যাতনের অভিযোগ জানায় স্ত্রী কাঞ্চনা সরকার। সেই মামলায় মাস তিনেক জেলও খাটে অনুপ। এরপর সালিশি সভার মাধ্যেম আবার সংসার শুরু করে অনুপ এবং কাঞ্চনা।

জানা গিয়েছে, শুক্রবার রাতে মদ-মাংস সহযোগে পিকনিকের আসর বসে অনুপ সরকারের বাড়িতে। সেখানে তার স্ত্রী কাঞ্চনা সরকার, অপু প্রামাণিক, স্বপন প্রামাণিক এবং ইমেল হাজরার সঙ্গে বিবাদ বাধে অনুপ সরকারের। অভিযোগ, এরপরেই বাড়ির মধ্যে খুন করে অনুপ সরকারকে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। আজ সকালে অনুপের ঝুলন্ত দেহ এলাকার লোকজনের নজরে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। ক্ষিপ্ত এলাকাবাসীরা অবৈধ সম্পর্কের সহযোগী অপু প্রামাণিক –কে ধরে এনে মারধরও করে।

খবর পেয়ে বংশীহারী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে অপু প্রামাণিককে ক্ষিপ্ত জনতার হাত থেকে উদ্ধার করে। দেহটি উদ্ধার করে, ময়নাতদন্তের জন্য বালুরঘাট জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। আটক করা হয় মৃতের স্ত্রী কাঞ্চনা সরকার এবং অপু প্রামাণিককে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে বংশীহারী থানার পুলিশ।