উত্তরবঙ্গ

ফিল্মি কায়দায় চলন্ত গাড়ি থেকে, চলন্ত গাড়িতে গুলি। পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে চালাতে ভিন রাজ্যে গা ঢাকা দুষ্কৃতিদের।

উত্তর দিনাজপুর, ২৫ সেপ্টেম্বরঃ একেবারে ফিল্মি কায়দায় চলন্ত গাড়ি থেকে আর এক চলন্ত গাড়িতে গুলি। এরপর পুলিশ ব্যারিকেড ভেঙে পালানোর চেষ্টা দুষ্কৃতিদের। পুলিশ পিছু ধাওয়া করলে, পুলিশকে লক্ষ্য করেও গুলি। শেষ পর্যন্ত গাড়ি ফেলে রেখে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে চালাতে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতিরা। চাঞ্চল্যকর ঘটনা উত্তর দিনাজপুর জেলার করণদীঘি থানা এলাকার।

কলকাতা থেকে ওষুধ বোঝাই গাড়ি চালিয়ে নিয়ে গৌহাটির উদ্দেশ্যে যাচ্ছিলেন মহম্মদ সেলিম। ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে উত্তর দিনাজপুর জেলার করণদীঘি থানার আলতাপুর ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চেয়েতের নাকোলে পৌঁছতেই একটি সাদা এবং একটি লালা গাড়ি তাঁদের পিছু নেয়। কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই গাড়ি থেকে ওষুধের গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি চালায় দুষ্কৃতিরা। গাড়ির কাঁচ ভেঙে গুলি গাড়ির ভেতরে ঢুকলেও, অল্পের জন্য রক্ষা পান সেলিম এবং তার সহকারি।

তাঁদের চিৎকার শুনে স্থানীয় মানুষেরা ছুটে আসাতে গাড়িগুলি পালিয়ে যায়। আতঙ্কিত হয়ে পড়েন গাড়ির চালক এবং সহকারী। ঘটনার খবর পেয়ে করণদীঘি থানার পুলিশ গাড়িদুটিকে ধরার জন্য ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে ব্যারিকেড তৈরি করে। কিন্তু টুঙ্গিদীঘি ট্রাফিক ব্যারিকেড ভেঙ্গে পালিয়ে যায় গাড়ি দুটি। টুঙ্গিদীঘি ট্রাফিক ব্যারিকেডে কর্তব্যরত পুলিশ আধিকারিক গাড়ি দুটিকে পিছু ধাওয়া করলে, ঝাড়বাড়ি এলাকায় পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে থাকে দুষ্কৃতিরা। এরপর গাড়ি দাঁড় করিয়ে পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালাতে চালাতে গা ঢাকা দেয় দুষ্কৃতিরা।

পুলিশের অনুমান, দুষ্কৃতিরা বিহার থেকে এসেছিল এবং গাড়ি দাঁড় করিয়ে গুলি চালাতে চালাতে ফের বিহারে ঢুকে যায়। এই ঘটনায় একটি গাড়ি আটক করেছে পুলিশ। ওই গাড়ির সূত্র ধরেই দুষ্কৃতিদের কাছে পৌঁছতে চেষ্টা করছে পুলিশ। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে করণদীঘি থানার পুলিশ।