উত্তরবঙ্গ

দুর্ঘটনাগ্রস্থ পরিযায়ী শ্রমিক বোঝাই বেসরকারি বাস। মৃত ৬, গুরুতর আহত ৫, নিখোঁজ ১ যাত্রী।

উত্তর দিনাজপুর, ২৩ সেপ্টেম্বরঃ পরিযায়ী শ্রমিক বোঝাই বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নয়ানজুলিতে পড়ে যাওয়ায় মৃত্যু হল ৬ জনের। ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন আরও ৫ যাত্রী। অন্যদিকে, বাসের এক যাত্রী দুর্ঘটনার পর থেকে নিখোঁজ রয়েছে বলে দাবি করেছেন অন্যান্য বাস যাত্রীরা। ওই যাত্রীকে খুঁজতে নয়ানজুলিতে নামানো হয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা দলের ডুবুরিকে। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ থানার অন্তর্গত রুপাহার এলাকায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বুধবার রাতে ঝাড়খন্ড থেকে লখনৌগামী পরিযায়ী শ্রমিক বোঝাই একটি বেসরকারি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রুপাহার এলাকায় ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের পাশের নয়ানজুলিতে পড়ে যায়। বর্ষার কারণে নয়ানজুলি জলে ভর্তি থাকায়, বাসের বেশীরভাগ অংশ জলে ডুবে যায়। দুর্ঘটনার বিকট শব্দ পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন এলাকার বাসিন্দারা। খবর দেওয়া হয় রায়গঞ্জ থানার পুলিশ এবং দমকলকে। নয়ানজুলিতে পড়ে যাওয়া বাসে আটকে পরা পরিযায়ী শ্রমিকদের উদ্ধারে ঝাঁপিয়ে পড়েন স্থানীয় বাসিন্দা এবং দমকল বাহিনীর কর্মীরা। পৌঁছন পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্তারাও। ঘটনাস্থলে পৌঁছয় বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরাও।

উদ্ধারকারীরা বাসের ভেতর থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় ৫ পরিযায়ী শ্রমিককে উদ্ধার করে রায়গঞ্জ গভর্নমেন্ট মেডিকেল কলেজে নিয়ে যায়। দীর্ঘ সময়ের চেষ্টার পর, জলের নীচ থেকে বাসে চাপা পড়ে থাকা ৬ টি মৃতদেহ উদ্ধার করেন উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা। মৃতদেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রায়গঞ্জ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

অন্যদিকে, ৬ জনের মৃতদেহ উদ্ধারের পরেও ওই বাসের ১ যাত্রী নিখোঁজ রয়েছেন বলে দাবি করেছেন বাসের অন্যান্য যাত্রীরা। নিখোঁজ ওই যাত্রীর খোঁজে বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের পক্ষ থেকে ডুবুরি নামানো হয় নয়ানজুলিতে। তবে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ওই নিখোঁজ যাত্রীকে উদ্ধার করা সম্ভব হয় নি। অপরদিকে, এলাকাবাসীদের অভিযোগ, জাতীয় সড়কের বেহাল দশার কারণেই এত বড় দুর্ঘটনা ঘটে গিয়েছে।